আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম, Ami Probashi Registration

আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম, Ami Probashi Registration

আপনি যদি দলালা ছাড়া বিদেশ যেতে যদি চান তাহলে আপনার জন্য আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশনের বিকল্প নাই। কারণ Ami Probashi Registration করার মাধ্যমে সরকারিভাবে চাকরি নিয়ে বিদেশ যাওয়া যায়। তাই নিজ এবং পরিবারের ভালোর জন্য বিএমইটির অধীনে আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করুন।

আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম, Ami Probashi Registration
আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম, Ami Probashi Registration

বিদেশে যাওয়ার সময় অনেকে দলালের ফাঁদে পরে সব হারায়। তাই দালাল মুক্ত বিদেশে যাত্রা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকার বিদেশে যেতে চাওয়া সকল নাগরিকে সহযোগিতা করার জন্য আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।

তাই সম্পূর্ণ দালাল মুক্ত হয়ে বিদেশ যেতে  Ami Probashi Registration করে ফেলুন। আপনারা যারা Ami Probashi Registration করার নিয়ম জাননে না তাদের সুবিধার্থে আমি আজ এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করব। তাই Ami Probashi Registration করার নিয়ম সম্পর্কে জানতে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন।

আমি প্রবাসী রেজিস্ট্রেশন

Ami Probashi Online Registration বা আনি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন অনলাইনের মাধ্যমে সম্পন্ন করতে হয়। আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন করার জন্য Ami Probashi app পাওয়া যায়। এই অ্যাপ দিয়ে নিজ মোবাইল নাম্বার পাসওয়ার্ড পাসপোর্ট সংক্রান্ত তথ্য এবং ব্যক্তিগত তথ্য দিয়ে আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হয়। আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন করার সময় বিএমইটি কর্তৃক পাসপোর্ট ভেরিফাই করতে ৭২ ঘন্টা সময় নেই তাই চিন্তার কিছু নেই সবকিছু ঠিক থাকলে ৭২ ঘন্টা পর পাসপোর্ট অটোমেটিক ভেরিফাই হয়ে যাবে।

আমি প্রবাসী রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম

আমি প্রবাসী রেজিষ্ট্রেশন করতে হলে আপনাকে আমি প্রবাসী অ্যাপ টি Google play store থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে। Ami Probashi App Download করার পর Ami Probashi Registration করার জন্য নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন,

  • প্রথমে আমি প্রবাসী অ্যাপ টি ওপেন করুন।
  • তারপর আপনার মোবাইল নাম্বারটি দিন এবং OTP ভেরিফাই করুন।
  • এবার আপানার একাউন্টটির নিরাপত্তার জন্য সর্বনিন্ম ৬ ডিজিটের পাসওয়ার্ড বসিয়ে “পরবর্তী” অপশনে ক্লিক করুন।
  • তারপর আপনি কোন দেশে যেতে ইচ্ছুক এই রকম তিনটি দেশ সিলেক্ট করুন।
  • তারপর আপনার নিজ সম্পর্কে ব্যক্তিগত তথ্য দিন।
  • এবার আপনার কোন কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দিন।
See also  ইন্ডিয়ান ভিসা সেন্টার সাপ্তাহিক ছুটি

মূলত এই নিয়মে Ami Probashi app এ আমি প্রবাসী হিসেবে রেজিষ্ট্রেশন করতে হয়।

সবকিছু ঠিকঠাক সাবমিট দেওয়ার পর  আপনার সমনে নতুন একটি POP-UP মেনু ওপেন হবে। এখানে আপনার যদি বিএমইটি কার্ড থাকে তাহলে তার তথ্য দিতে হবে। আর যদি না থাকে তাহলে নতুন করে বিএমইটি কার্ডের জন্য বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। নিচে বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম, BMET Registration

BMET Registration করার জন্য আমি প্রবাসী অ্যাপে লগইন করুন। তারপর আমি প্রবাসী অ্যাপ থেকে বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন রেজিষ্ট্রেশন অপশনে ক্লিক করুন। তারপর বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন করার জন্য নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন,

  • বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন করার জন্য প্রথমে আপনারা আপনার পাসপোর্টের তথ্য দিতে হবে এই জন্য পাসপোর্ট স্ক্যান করুন অথবা গ্যালারি থেকে পাসপোর্টের ছবি আপলোড দিন।
  • তারপর অটোমেটিক ভাবে আপনার পাসপোর্ট থেকে তথ্য নিয়ে নিবে।
  • এবার আপনার ব্যক্তিগত তথ্য দিন। মানে আপনার পিতা মতার নাম, বিবাহিত হলে স্ত্রীর নাম এগুলো দিন।
  • এখন যোগাযোগের জন্য মোবাইল নম্বার, ইমেইল, স্থায়ী ঠিকানা ইত্যাদি উল্লেখ করুন।
  • তারপর আপনি নমিনি হিসেবে যাকে রাখতে চান তার নাম ঠিকানা দিন।
  • এবার জরুরি মূহুর্তে কার সাথে যোগাযোগ করবে সেই ব্যক্তির মোবাইল নাম্বারসহ বিস্তারিত তথ্য দিন।
  • তারপর আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দিন।
  • আপনি বাংলা ভাষা ছাড়া অন্য কোন ভাষায় পারদর্শী হলে সেই ভাষা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দিন।
  • সবশেষে যে সকল তথ্য সাবমিট দিলেন তা আবার দেখতে যাচাই করুনে ক্লিক করুন।
  • সবগুলো তথ্য ভাল করে চেক দিয়ে সব ঠিক থাকলে আবেদন সাবমিট করুন।

এখন আপনার আবেদনটি বিএমইটি সার্ভারে জমা হবে। সবকিছু ঠিক থাকলে আপনার আবেদনটি এপ্রুভ হয়ে যাবে।

বি:দ্র: বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন করার সময় পাসপোর্ট ভেরিফাই হতে ৭২ ঘন্টা সময় লাগে। তাই আবেদন করার পর অপেক্ষা করুন।

See also  দক্ষিণ কোরিয়া লটারি আবেদন ২০২৩ ঘোষণা, কোরিয়া লটারি সার্কুলার ২০২৩

বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন ফি কত

মনে রাখবেন আমি প্রবাসী বা বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন ফি হলো ৩০০ টাকা। এই ৩০০ টাকা আপনার পাসপোর্ট ভেরিফাই করার পর আবেদন প্রকিয়াধীন অপশনে ক্লিক করে বিকাশ বা নগদের মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে। আবেদন ফি ছাড়া কোন আবেদন Approved করা হয় না। তাই বিএমইটি আবেদন করার পর পাসপোর্ট ভেরিফাই সম্পন্ন হলে আবেদন ফি জমা দিয়ে দিন।

Sarker Tahsin

Hello friends, my name is Imon Miah, I am the Writer and Founder of this blog Infolinebd and share all the information related to Blogging, SEO, Internet, Sports news, Review, Make Money Online, News and Technology through this website. Know for infolinebd about

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page