বাংলাদেশের সকল মোবাইল ব্যাংকিং লিস্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

বাংলাদেশের সকল মোবাইল ব্যাংকিং লিস্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

বাংলাদেশের সকল মোবাইল ব্যাংকিং লিস্ট একাউন্ট খুলার নিয়ম
বাংলাদেশের সকল মোবাইল ব্যাংকিং লিস্ট একাউন্ট খুলার নিয়ম

বাংলাদেশে দিন দিন মোবাইল ব্যাকিং জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। জনপ্রিয় এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবা নিয়ে সাধারণ মানুষের আগ্রহ অনেক। এর পিছনে অন্যতম কারণ হলো মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সহজলভ্যতা। দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠার পিছনে মূলত এগুলাই কাজ করছে। বাংলাদেশের গ্রামগঞ্জে শহরের আনাচে কানাচে সব জায়গায় মোবাইল ব্যাংকিংয়ের এজেন্ট পাওয়া যায় যার ফলে ব্যাংকিং খাতের তুলনায় মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেন করা অনেক সহজ।

বাংলাদেশে মোবাইল ব্যাংকিয়ের যাত্রা শুরু হয় ২০১১ সালে। ২০১১ সালের ৩১ শে মার্চ প্রথম মোবাইল ব্যাংকিং হিসেবে যাত্রা শুরু করে ডাচ বাংলা ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম ডিবিএল মোবাইল ব্যাকিং তবে সর্বশেষ বর্তমানে ডাচ বাংলা ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং সেবা তাদের নাম পরিবর্তন করে রেখেছে রকেট। এছাড়াও বাংলাদেশের অন্যতন সেরা মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম হলো বিকাশ। বিকাশ মূলত ব্যাক ব্যাংকের একটি প্রতিষ্ঠান। বিকাশ,রকেট, নগদ এগুলা ছাড়াও আরো অনেক মোবাইল ব্যাংকিং গ্যাটওয়ে বাংলাদেশে রয়েছে। আজ আমরা আলোচনা করব বাংলাদেশের সকল মোবাইল ব্যাংকিং গ্যাটওয়ে সিস্টেম এবং তাদের একাউন্ট রেজিষ্ট্রেশন করার নিয়ম সম্পর্কে।

মোবাইল ব্যাংকিং কি

মোবাইল ব্যাংকিং সম্পর্কে সহজ কথায় বলতে গেলে বলা যায় মোবাইলের মাধ্যমে ব্যাংকিং সিস্টেমের মতো টাকা আদান প্রদান করার একটি সিস্টেম। মোবাইল ব্যাংকিং মূলত এমন একটি সিস্টেম যা আর্থিক প্রতিষ্ঠান কর্তৃক নিয়ন্ত্রণ করা হয় এবং মেবাইল ও স্মার্ট ফোন ব্যবহার করে ব্যবহারকরীরা এটি নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সুবিধা কি কি

আমাদের দেশের মোবাইল ব্যাংকিংয়ের নানান ধরনের সুবিধা পেয়ে থাকি আমরা। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে প্রাপ্ত সুবিধা গুলোর তালিকা নিচে দেওয়া হলো।

* টাকা পাঠানো ও রিসিভ করা।
* ক্যাশ আউট সুবিধা অর্থাৎ টাকা তুলা।
* বিভিন্ন প্রকার বিল প্রদান করা ( যেমন বিদ্যুৎ বিল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিল, এনজিওর কিস্তি প্রদান ও কেনাকাটা করা)
* ট্রাফিক পুলিশের দেওয়া মামলার বিল পরিশোধ করা।
* বিভিন্ন ডিপিএসের কিস্তি প্রদান করা।
* বিদেশ থেকে টাকা রিসিভ করা।
* মোবাইল ফোনে রিচার্জ করা যায়।
* মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বেতন ভাতা রিসিভ করা যায়।
* বিধবা ভাতা ও বয়স্ক ভাতা প্রদান করা।
* উপবৃত্তির টাকা প্রদান করা হয়।

এছাড়াও আরো বিভিন্ন প্রকার সুবিধা মোবাইল ব্যাংকিং Getaway এর মাধ্যমে পাওয়া যায়।

বাংলাদেশের সকল মোবাইল ব্যাংকিয়ের তালিকা

বাংলাদেশে ২০১১ সালে প্রথমে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সেবা চালু হয়েছিল তবে বর্তমানে দিন দিন পেতে পতে ১৩ টিতে চলে গিয়েছে। নিচে বাংলাদেশে চলমান ১৩ টি মেবাইল ব্যাংকিং সেবাদানকারি প্রতিষ্ঠানের তালিকা দেওয়া হলো।

প্রতিষ্ঠানের নাম ও মোবাইল ব্যাংকিং নাম

ক্রমিক নং ব্যাংকের নাম এমএফএস সার্ভিস
১। ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড রকেট
২। ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড বিকাশ
৩। মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড মাই ক্যাশ
৪। ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড ইসলামী ব্যাংক এমক্যাশ
৫। ট্রাস্ট ব্যাংক ট্যাপ- tap
৬। ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসালমী ব্যাংক লিমিটেড র্ফাস্ট পে শিয়োর ক্যাশ
৭। ইউসিবি ফিনন্টেচ কোম্পানি লিমিটেড উপায়
৮। বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক নিশ্চিত নগদ
৯। ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড OK Wallet
১০। রূপালি ব্যাংক লিমিটেড রূপালি ব্যাংক শিয়োর ক্যাশ
১১। সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড টেল ক্যাশ
12 আল আরাফা ইসলাম  ব্যাংক লিমিটেড Islamic wallet
১২। মেঘনা ব্যাংক লিমিটেড ও বাংলাদেশ পোস্ট অফিস  ট্যাপ এন পে ও নগদ

ডাচ বাংলা ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং রকেট

আমরা সবাই জানি রকেট আকাশে উরে তবে এই রকেট মানে ঐ রকেট না। এই রকেট মানে টাকার রকেট। ডাচ বাংলা ব্যাংকের হাত ধরে মূলত বাংলাদেশের মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবস্থার শুরু। ২০১১ সালের ৩১ মার্চ ডাচ বাংলা ব্যাংক সর্ব প্রথম মোবাইল ব্যাকিং ব্যবস্থা চালু করে তখন ডাচ বাংলা ব্যাংক মোবাইল ব্যাংক এর নাম ছিল ডিবিএল মোবাইল ব্যাংক কিন্তু পরবর্তীতে সেই নাম পরিবর্তন করে নতুন নাম রাখা হয় রকেট।

রকেট একাউন্ট খোলার নিয়ম

কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই রকেট একাউন্ট খুলার জন্য আপনাকে Rocket apps install করতে আপনার মেবাইলে। Rocket apps install করার পর Application টি ওপেন করতে। apps টি ওপেন করার পর নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন।

See also  বিকাশে লোন নেওয়ার উপায়

* Rocket apps Open করুন এবং আপনার ভাষা সিলেক্ট করুন। তারপর Apps এ Login করতে হবে এর জন্য আপনার মেবাইল নাম্বার টি দিন এবার Next এ ক্লিক করুন।

* তারপর আপনার ফোনে রকেট কর্তৃক একটি কল দেওয়া হবে কল পাওয়ার পর একটি পিন নাম্বার দিতে হবে নিজের পছন্দ অনুযায়ী।

* তারপর আপনাকে একটি সিকিউরিটি কোড পাঠানো হবে। এবার সিকিউরিটি কোডটির সংখ্যা গুলো এপসে সাবমিট দিয়ে নেক্সটে ক্লিক করুন।

* এবার আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের সামনে ও পিছনের উভয় সাইটের ছবি তুলে সাবমিট দিন রকেট কর্তৃপক্ষ এবার আপনার NID Verification করবে ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে Ok চাপুন ব্যাস হয়ে গেল আপনার একটি নতুন রকেট account।

ব্যাক ব্যাংকের বিকাশ মোবাইল ব্যাকিং

ডাচ বাংলার পর মেবাইল ব্যাংকিং হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে বিকাশ ২০১১ সালের শেষের দিকে বিকাশের যাত্রা শুরু হয়। বিকাশের বাংলাদেশ অংশের মালিকা ব্যাক ব্যাংক লিমিটেডের কাছে অন্য দিকে আমেরিকার একটি কোম্পানিও বিকাশের যৌথ মালিকানা আছে। আমেরিকার মানি ইন মোশন এলএলসিটর মালিকানা রয়েছে বিকাশের। বিকাশ বাংলাদেশের সবচেয়ে দ্রুত সম্প্রাসরনশীল মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি রয়েছে জনপ্রিয়তার শীর্ষে।

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

বিকাশ একাউন্ট খুলা একদম সহজ নিজে নিজে খুলা যায় একাউন্ট। সহজে বিকাশ একাউন্ট খুলার জন্য আপনার মোবাইলে BKash Apps Install করে নিন । Bkash App Install হয়ে গেলে নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করে বিকাশের একাউন্ট খুলে নিন।

* প্রথমে BKash apps টি Open kকরুন তারপর লগইন অথবা রেজিষ্ট্রেশন অপশনে ক্লিক করুন।

* এবার আপনার মোবাইল নাম্বার টি দিন। তারপর আপনার মোবাইল নম্বরটি কোন অপারেটর তা সিলেক্ট করে নেক্সটে ক্লিক করুন।

* এই পর্যায়ে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের সামনে ও পিছনের ছবি তুলে সাবমিট দিন।

* এবার আপনার ফেস স্কেন করুন। ফেস স্কেন করা হয়ে গেলেই আপনার বিকাশ একাউন্ট খুলা শেষ।

ডাক বিভাগের নগদ মোবাইল ব্যাংকিং

২৬ মার্চ ২০১৯ নগদের মোবাইল ব্যাংকিং হিসেবে যাত্রা শুরু হয়। নগদ ডাক বিভাগের একটি প্রতিষ্ঠান। ক্যাশ আউট খরচ তূলনামূলক কম হওয়ায় শুরু থেকেই দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠে নগদ। ডাক বিভাগের পোস্টাল ক্যাশ কার্ড এবং ইলেকট্রনিক মানি ট্রান্সফার সিস্টেম-এর নতুন সংস্করণ হলো নগদ। বর্তমানে সারা দেশে রয়েছে নগদের এজেন্ট পয়েন্ট। ফলে গ্রাহক দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে নাগদের।

নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই Nagad application install করে নগদ একাউন্ট খুলা যায়। সহজেই নগদ account open করতে নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন।

* প্রথমে Google play store থেকে Nagad application টি ডাউনলোড করে নিন। তারপর অ্যাপসটি ওপেন করুন।

* ওপেন হয়ে গেলে আপনার মোবাইল নাম্বারটি দিন তারপর আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের উভয় পাশের ছবি দিন।

* এবার আপনার নিজের ছবি সামবিট দিন তাহলেই আপনার নগদ একাউন্ট খুলা শেষ। এবার আপনার পছন্দ মতো পিন দিয়ে একাউন্ডটি সেটআপ করে নিন।

ইসলামী ব্যাংক MCash মোবাইল ব্যাংকিং

ইসালামী ব্যাংক এম ক্যাশ হাতে হাতে সাথে সাথে এই স্লোগানকে সামনে রেখে ২০১২ সালে ২৭ ডিসেম্বর যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশের অন্যতম প্রভাবশালী ব্যাংক ইসলামি ব্যাংকের এমক্যাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা।

mCash একাউন্ট খোলার নিয়ম

ঘরে বসেই খুব সহজেই ইসলামী ব্যাংকের mcash এর account open করা যায়। ঝামেলা হীনভাবে এমক্যাশ একাউন্ট খুলতে নিচের দাপ সমূহ অনুসরণ করুন।

* প্রথমে আপনার মোবাইলে mcash application টি ডাউনলোড করে Install করে নিন।

*এমক্যাশ apps টি open করুন এবার আপনি যে নাম্বারে একাউন্ট খুলতে চান সেই নাম্বারটি দিন এবং সেটি কোন অপারেটরের তা সিলেক্ট করে দিন।

* তারপর আপানর নাম্বারে একটি পিন কোড পাঠানো হবে ঐ পিন কোডটি সাবমিট দিন সাবমিট দেওয়া হয়ে গেলে এই পার্যায়ে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের উভয় পাশের ছবি দিন।

* এবার আপনার লিঙ্গ ও পেশা উল্লেখ করে নেক্সটে চাপুন এই পর্যায়ে আপনাকে আপার ফেস স্ক্যান করে ছবি দিতে হবে তার জন্য আপনার মেবাইলের ফ্রন্ট ক্যামেরা ব্যবহার করুন সব সম্পন্ন হয়ে গেলে বেস আপনার ইসলামী ব্যাংকের এম ক্যাশ একাউন্টটি তৈরি হয়ে গেল।

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের মাইক্যাশ

বাংলাদেশ মার্কেন্টাইল ব্যাংকের মাধ্যমে ২০১২ সালে মোবাইল ব্যাংকিং খাতে নতুন একটি নাম মাই ক্যাশ নামে সংযোজিত হয়। বাংলাদেশের পিছিয়ে পাড়া জনগোষ্ঠীকে মূল সূত ধারায় ফিরিয়ে আনতে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা জনগানের দূরগোড়ায় পৌছে দিতে mycash এর যাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে সারা দেশে মাই ক্যাশের এজেন্ট রয়েছে যাদের মাধ্যমে মাই ক্যাশ তাদের সেবা দিচ্ছে।

মাইক্যাশ একাউন্ড খোলার নিয়ম

কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই Mycash application install করে mycash একাউন্ট খুলা যায়। সহজেই মাইক্যাশ account open করতে নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন।

* প্রথমে Google play store থেকে mycash application টি ডাউনলোড করে নিন। তারপর অ্যাপসটি ওপেন করুন।

* ওপেন হয়ে গেলে আপনার মোবাইল নাম্বারটি দিন তারপর আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের উভয় পাশের ছবি দিন।

See also  সকল মোবাইল ব্যাংকিং ইউএসএসডি কোড, মোবাইল ব্যাংকিং হেল্পলাইন নাম্বার

* এবার আপনার নিজের ছবি সামবিট দিন তাহলেই আপনার মাইক্যাশ একাউন্ট খুলা শেষ। এবার আপনার পছন্দ মতো পিন দিয়ে একাউন্ডটি সেটআপ করে নিন।

ট্রাস্ট আজিজিয়া গ্রুপের ট্যাপ

ট্রাস্ট আজিজিয়া গ্রুপ ও ট্রাস্ট ব্যাংকের হাত ধরে মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম Tap এর উদ্ভাবন। Tap Application ও USSD Code এর মাধ্যমে তাদের সেবা প্রদান করে আসছে। আস্তে আস্তে করে tap তাদের জায়গা বিস্তার করছে।

ট্যাপ একাউন্ট খোলার নিয়ম

Tap একাউন্ট খুব সহজেই মোবাইলের মাধ্যমে খুলা যায়। মোবাইলের মাধ্যমে ট্যাপ একাউন্ট খুলতে হলে আপনাকে প্রথমে tap Android application আপনার স্মার্ট ফোনে ইনস্টলেশন করা লাগবে। Tap Apps install করা হয়ে গেলে এবার আপনি অ্যাপটি ওপেন করে একাউন্ট করতে নিচের ধাপ অনুসরণ করুন।

* ট্যাপ ওপেন করে পারমিশন চাইলে পারমিশন দিন। এবার আপনার মোবাইল নাম্বার দিন এবং তা অপটারের তা উল্লেখ করে দিন।

* আপনার ফোনে পাঠানো কোডটি দিয়ে ট্যাপ ভেরিফিকেশন করুন।

*ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে এবার আপনার নাম ঠিকানা লিঙ্গ এগুলো লিখে সাবমিট দিন এবং তারপর আপনার ট্যাপ একাউন্টের জন্য ৪ সংখ্যার পিন সেটআপ করুন।

* তারপর আপনার ভোটার আইডি কার্ডের উভয় পাশের ছবি দিয়ে নেক্সট ক্লিক করুন।

* এবার আপনার ফেস স্ক্যান করবে এবং ফেস স্ক্যান করা হয়ে গেলে আপনার একাউন্টটি একটিভ হয়ে যাবে। এবার চাইলে আপনি আপনার পিন নাম্বার দিয়ে একাউডে লগইন করতে পারবেন।

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক ” র্ফাস্ট পে শিওর ক্যাশ”

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংকের একটি আর্থিক মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম হলো ফার্স্ট পে শিয়োর ক্যাশ। এর মাধ্যমে ইউটিলিটি বিল সহ অনান্য সেবা পাওয়া যায়। মানুষের কাছে মোবাইল ব্যাংকিংয় সহজে পৌছে দিতে ফার্স্ট পে শিয়োর ক্যাশের যাত্রা শুরু হয়।

ফার্স্ট পে শিওর ক্যাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

Frist pay sure cash এর একাউন্ট এখনো নিজে নিজে খুলা যায় না। তবে আপনি চাইলে র্ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের যে কোন শাখা থেকে গ্রাহক ও এজেন্ট একাউন্ট খুলতে চাইলে এজেন্ট ফরম সংগ্রহ করে একাউন্ট খুলতে পারবেন।

রূপালী ব্যাংক শিওর ক্যাশ

বাংলাদেশের রাষ্ট্রয়াত্ব ব্যাংক রূপালি ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হলো শিওর ক্যাশ। শিওর ক্যাশের মাধ্যমে সকল সেবা পাওয়া যায়। ইউটিলিটি বিল টাকা আদান প্রদানের জন্য শিওর ক্যাশ খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

শিওর ক্যাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

খুব সহজেই মোবাইলের মাধ্যমে শিওর ক্যাশ একাউন্ট খুলা যায়। মোবাইলের মাধ্যমে শিয়োর ক্যাশ একাউন্ড খুলার জন্য Sure cash apps install করে ওপেন করে নিতে হবে। তারপর নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন।

* অ্যাপসটি ওপেন করে আপনার মোবাইল নাম্বারটি দিয়ে ভেরিফিকেশন করে নিন।

* তারপর আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের উভয় পাশের ছবি তুলে সাবমিট দিন। এবার আপনার তথ্য সবগুলো ঠিক থাকলে ওকে করুন।

* তারপর আপনার ফেসের ছবি আপলোড দিয়ে পিন সেটআপ করুন ব্যাস হয়ে গেল আপনার শিওর ক্যাশ একাউন্ট।

ইউনাইটেড কর্মাশিয়াল ব্যাংকের উপায়

Upay বা উপায় যা পূর্বে নাম ছিল Ucash নামে। তবে পরবর্তীতে ইউক্যাশ থেকে নাম পরিবর্তন করে UCB ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠান দিয়েছে উপায়। বর্তামনে উপায় সারাদেশে দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

উপায় একাউন্ট খোলার নিয়ম

Upay একাউন্ট সাহজেই করতে হলে মোবাইলে উপায় অ্যাপসটি ইনস্টল করে নিতে হবে তারপর Upay Apps টি ওপেন করে নিচের নিয়ম গুলো অনুসরণ করতে হবে।

* উপায় অ্যাপটি ওপেন করুন এবং আপনার মোবাইল নাম্বার দিয়ে ভেরিফাই করুন।

* তারপর আপনার পিন সেটআপ দিন।

* এবার আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের উভয় পাশের ছবি দিন।

* এবার আপনার নিজের ফেস স্ক্যান করুন।

বেস হয়ে গেল আপনার উপায় একাউন্ট।

ওয়ান ব্যাংকের ওকে ওয়ালেট

রকেট বিকাশ নগদের মতো ওকে ওয়ালেট হলো ওয়ান ব্যাংকের একটি মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম। বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক অনুমোদিত ওকে ওয়ালেট। ওকে ওয়ালেটের মাধ্যমে ইউটিলিটি বিল পে করা এবং টাকা আদান প্রদান করা যায়।

ওকে ওয়ালেট একাউন্ট খোলার নিয়ম

সহজেই খুলা যায় ওকে ওয়ালেট একাউন্ট। ok wallet একাউন্ট খুলতে প্রথমে মোবাইলে Ok wallet apps Install করে নিতে হবে। তারপর নিচের নিয়ম গুলো অনুসরণ করে ওকে ওয়ালেট একাউন্ট খুলতে পারা যাবে।

* ওকে ওয়ালেট অ্যাপসটি ওপেন করুন এবং নিজের মেবাইল নম্বর ও নিজ ভোটার আইডি নাম্বার দিন।

* এবার আপনার ফোনে পাঠানো ভেরিফিকেশন কোডটি সাবমিট দিন।

* এবার এই পর্যায়ে আপানর সেলফি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের উভয় পাশের ছবি সাবমিট দিতে হবে।

* এবার আপনার মোবাইলে একটি পিন নাম্বার পাঠানো হবে ওকে ওয়ালেট থেকে ব্যাস হয়ে গেল আপনার একাউন্ট।

এখন আপনি চাইলে এই পিন ও আপনার ফোন নাম্বার ব্যাবহার করে ওকে ওয়ালেটে লগইন করতে পারবেন।

মেঘনা ব্যাংক Tap n pay ( ট্যাপ এন পে)

মেঘনা ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকি সিস্টেম হলো ট্যাপ এন পে। এটি নতুন হলোও এটি কাজ অনান্য মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেমের মতো। মেঘনা ব্যাংকের ট্যাপ এন পের দিন দিন পরিচিতি বাড়ছে।

ট্যাপ এন পে একাউন্ট খোলার নিয়ম

ট্যাপ এন পে তে একাউন্ট খুলতে হলে আপনাকে মেঘনা ব্যাংকের যে কোন শাখা অথবা ট্যাপ এন পে এজেন্টদের কাছ থেকে খুলতে হবে।

আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক ইসলামিক ওয়ালেট

আল আরাফা ইসলামী ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম হলো ইসলামীক ওয়ালেট। যারা ইসলামি ব্যাংকিং ব্যবস্থা পছন্দ করেন তারা এই মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেমটি ব্যবহার করতে পারেন।

ইসলামীক ওয়ালেট একাউন্ট খোলার নিয়ম

ইসলামীক ওয়ালেটে একাউন্ট খুলতে হলে ইসলামীক ওয়ালেটে অ্যাপসটি মোবাইলে ডাউনলোড করে ইনস্টল করে নিতে হবে।

* তারপর অ্যাপসটি ওপেন করে ফোন নাম্বার ভেরিফাই করতে হবে। ফোন নাম্বার ভেরিফাই হয়ে গেলে জাতীয় পরিচয়পত্রের উভয় পাশের ছবি ও সেলফি দিয়ে সর্বশেষ পিন সেটআপ করে একাউন্ট খুলার কাজ শেষ করতে হবে।

এভাবেই ইসালিমক ওয়ালেটে একাউন্ট খুলতে হয়।

বাংলাদেশের জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান

বাংলাদেশের মোবাইল ব্যাংকিয়ের ইতিহাসে সবচেয়ে জনপ্রিয় কিছু মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠানের তালিকা দেওয়া হলো।

১/ বিকাশ
২/ রকেট
৩/ নগদ
৪/ শিওর ক্যাশ
৫/ উপায়

এগুলো বর্তমানে সেরা পাঁচে রয়েছে।

Sarker Tahsin

Hello friends, my name is Imon Miah, I am the Writer and Founder of this blog Infolinebd and share all the information related to Blogging, SEO, Internet, Sports news, Review, Make Money Online, News and Technology through this website. Know for infolinebd about

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page