সহজে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার নিয়ম

সহজে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার নিয়ম
সহজে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার নিয়ম

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা নিজের এলাকা বাদে অন্য এলাকায় ভোটার হয়েছেন। কারণ অনেকেই জীবিকার তাগিদে ঢাকা বা অনান্য জেলায় পরিবার নিয়ে বা পরিবার ছাড়া বসবাস করেন। তাই যখন ঐ এলাকায় ভোটার নিবন্ধন চলছিল তখন হয়তো আপনি সময় ও ঝামেলা মুক্ত হওয়ার জন্য ঐ এলাকার ভোটার হিসেবে নিবন্ধন করেছেন। তবে এখন আপনি হয়তো আপনার স্থায়ী ঠিকানায় চলে আসছেন। এখন চাইছেন আপনার স্থায়ী ঠিকানায় ভোট প্রদান করতে অর্থাৎ, আপনার স্থায়ী ঠিকানা অনুযায়ী ভোটার নিবন্ধন করতে।

স্থায়ী ঠিকানা ভোটার হিসেবে নতুন নিবন্ধন করার কোন সুযোগ নেই। তবে আপনি চাইলে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের ভোটার এলাকা পরিবর্তন করতে পারবেন। ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার মাধ্যমে আপনি আপনার স্থায়ী ঠিকানায় ভোট প্রদান করতে পারবেন। ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার জন্য নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম রয়ছে আজ আমরা সেই নির্দিষ্ট নিয়ম গুলো নিয়ে আলোচনা করব। কিভাবে আপনি আপনার ভোটার এলাকা পরিবর্তন করতে পারবেন।

ভোটার এলাকা পরিবর্তন করতে কি কি লাগে

ভোটার এলাকা পরিবর্তন করে নতুন এলাকায় ভোটার হিসবে নাম নিবন্ধন করতে হলে আপনাকে ভাটার এলাকা ট্রান্সফারের আবেদন করতে হবে এবং আবেদন করার সময় যে সমস্ত ডকুমেন্টস প্রয়োজন হবে তা হলো,

* ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান / ওয়ার্ড কাউন্সিলর / সিটি করপোরেশন/ পৌরসভার মেয়র / প্রথম শ্রেনীর গেজেটেড কর্মকর্তার প্রত্যায়ণ পত্র।

* ইউটিলিটি বিল কপি। বিদ্যুৎ / গ্যাস/ পানির বিল কপি।

* বাড়ী ভাড়া রশিদ/ চৌকিদারী কর রশিদ/ পৌরকর রশিদ পরিশোধ করার কপি।

এই ডকুমেন্টস গুলো ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার জন্য প্রয়োজন পরে।

সহজে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার নিয়ম

ভোটার এলাকা সহজেই পরিবর্তন করা যায় নির্বাচন কমিশন অফিসের মাধ্যমে। এজন্য আপনার উপজেল নির্বাচন অফিসে গিয়ে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার আবেদন করতে হবে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সাথে নিয়ে। তবে অনেকেই বলে থাকেন অনলাইনে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করা যায় এই তথ্যটি আসলে মিথ্যা অনলাইনে আপনি চাইলে ঠিকানা পরিবর্তন করতে পারবেন তবে ভোটার এলাকা পরিবর্তনের জন্য আপনাকে সরাসরি উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে আবেদন করতে হবে। নিচে ভোটার এলাকা পরিবর্তনের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফি

ভোটার এলাকা পরিবর্তন একদম বিনামূল্যে করা হয়। ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার জন্য সরকারি কোন ফি লাগে না। তাই কেউ যদি ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার কথা বলে কোন ধরনের অর্থের দাবি করে তাহলে নিকটস্থ উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসারকে তা অবহিত করুন।

ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার নিয়ম

ভোটার এলাকা ট্রান্সফার বা পরিবর্তন করতে হলে আপনি যে এলকায় ভোটার হিসেবে স্থানান্তরিত হতে চান সেই এলাকার উপজেলা নির্বাচন কমিশনে আবেদন করতে হবে। ভোটার এলকা পরিবর্তন করার জন্য ভোটার স্থানান্তর ফরম এর মাধ্যমে আবেদন করতে হয়। ভোটার স্থানান্তর ফরমকে আবার ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ বলে ডাকা হয়।

ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিস থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন। তাছাড়া আপনি অনলাইন হইতে ভোটার স্থানান্তর ফরম বা ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ ডাউনলোড করতে পারবেন। তারপর এই ফরমের মাধ্যমে আপনাকে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার জন্য আবেদন করতে হবে।

See also  NID Wallet কি?এনআইডি ওয়ালেট ব্যবহারের নিয়ম

ভোটার এলাকা পরিবর্তন মূলত তিনটি ধাপে সম্পন্ন হয়ে থাকে।

১/ ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ ডাউনলোড বা সংগ্রহ

২/ ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ পূরন করা

৩/ ভোটার এলাকা পরিবর্তন আবেদন জমা দেয়া

ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ডাউনলোড বা সংগ্রহ করা

ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার জন্য আবেদন ফরম আপনি যে এলাকায় ভোটার কেন্দ্র পরিবর্তন করতে চান সেই এলাকার উপজেলা নির্বাচন কমিশন থেকে আবেদন ফরম সংগ্রহ করতে হবে। এই আবেদন ফরমকে ভোটার স্থানান্তর বা ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ বলা হয়। এই আবেদন ফরমে অনলাইনে যে কোন উপজেলা নির্বাচন কমিশন ওয়েবসাইট অথবা এনআইডি জাতীয় পোর্টালে থেকে ডাউনলোড করা যায়। এবার ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ ডাউনলোড হয়ে গেলে পরবর্তী ধাপে যেতে হবে।

ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩

ভোটার এলাকা পরিবর্তন বা স্থানান্তর করার জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি আবেদন ফরম হলো এই ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩। এই ফরমকে অনেকেই ভোটার স্থানান্তর ফরম বা ফরম ১৩ বলে ডাকেন। এই ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ ছাড়া কোন ভাবেই ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার জন্য আবেদন করা যায় না। ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিস অথবা এনআইডি পোর্টাল থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

ভোটার এরিয়া পরিবর্তন পরিবর্তন ফরম ১৩
ভোটার এরিয়া পরিবর্তন পরিবর্তন ফরম
ভোটার এরিয়া পরিবর্তন পরিবর্তন ফরম ১৩
ভোটার এরিয়া পরিবর্তন পরিবর্তন ফরম ১৩

ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ পূরণ করার নিয়ম

এই পর্যায়ে আপনাকে সংগ্রহ করা ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ ভাল করে পূরণ করতে হবে। ফরম পূরনের সময় যাবতীয় তথ্য সঠিক প্রদান করতে হবে। আবেদন ফরম পূরণ করার জন্য নিচের নিয়ম গুলো অনুসরণ করুন।

* এক ভোটার এলাকা হইতে অনয় এলাকায় ভোটার স্থানান্তর করার জন্য উপজেলা নির্বাচন অফিসার বরাবর আবেদন করতে হবে। প্রথমে প্রপক এর স্থলে আপনার৷ উপজেলা ও জেলার নাম লিখুন।

* তারপর ক্রমিক ১ এ আবেদনকারীর নাম ও ক্রমিক ২ এ আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর প্রদান করুন।

* তারপর ক্রমিক ৩ এ আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী জন্ম তারিখ প্রদান করুন।

* ক্রমিক ৪ নাম্বারে আপনি বর্তমানে যে এলাকার ভোটার হিসেবে আছেন সেই এলাকার ভোটার অন্তভূক্তির তথ্য দিতে হবে।

* এ জন্য আপনাকে প্রথমে ভোটার নম্বর, ভোটার এলাকার নাম, ভোটার এলাকার নম্বর লিখতে হবে (এই তথ্য গুলো পেতে আপনার এনআইডি নম্বর দিয়ে অনলাইনে এনআইডি পোর্টাল থেকে চেক করে নিতে পারবেন)। তারপর উপজেলা, জেলা, গ্রাম/ রাস্তা নাম্বার, হোল্ডিং নম্বর / বাসার নম্বর এগুলো পূরণ করতে হবে।

* এখন ক্রমিক ৫ নম্বরে যে এলাকায় ভোটার হিসবে স্থানান্তরিত হইতে ইচ্ছুক সেই এলাকার তথ্য দিতে হবে।

* এ জন্য প্রথমে জেলা, উপজেলা, সিটি করর্পোরেশন/ পৌরসভা/ ইউনিয়ন, ওয়ার্ড নম্বর পূরণ করতে হবে। তারপর ভোটার এলাকার নাম, ভোটার এলাকার নম্বর (এই তথ্য গুলো পেতে আপনার এনআইডি নম্বর দিয়ে অনলাইনে এনআইডি পোর্টাল থেকে চেক করে নিতে পারবেন)। এবার গ্রাম / রাস্তা নম্বর, বাসা/ হোল্ডিং নম্বর / টেলিফোন / মোবাইল নম্বর, ডাকঘর ও পোস্ট কোড পূরন করতে হবে।

* ক্রমিক ৬ নাম্বারে আপনি যে এলাকায় ভোটার স্থানান্তর করতে চাইছেন সেই এলাকায় কবে থেকে অবস্থান করতছে৷ তা উল্লেখ করুন।

* ক্রমিক ৭ নাম্বারে কি করনে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করছেন তার কারণ লিখুন।

এখন আপনার আবেদন ফরমের প্রথম অংশ পূরণ করা হয়ে গেল। তারপর আপনাকে আবেদন ফরমের দ্বিতীয় অংশ পূরণ করতে হবে।

See also  ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করার নিয়ম

* দ্বিতীয় অংশে আবেদনকারীর স্বাক্ষর বা টিপসই দিন।

* তারপর আবেদনকারীর সনাক্তকারীর স্বাক্ষর, নাম, ঠিকানা, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর দিন। এই ক্ষেত্রে আপনার এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের নাম ঠিকানা ব্যবহার করুন সনাক্তকারী হিসেবে।

* তারপর আপনার আর কোন কাজ নেই বাকি কাজ উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিস কর্তৃক পূরণ করবে।

এখন সফল ভাবে আবেদন ফরম পূরণ করা হয়ে গেলে এবার তা জমা দেওয়ার পালা।

ভোটার এলাকা পরিবর্তন আবেদন জমা দেয়া

আবেদন ফরম পূরণ করার পর আবেদনটি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে জমা দিয়ে দিন। আপনার আবেদনপত্র টি জমা দেওয়া হলে উপজেলা নির্বাচন কমওশন অফিস থেকে আপনাকে প্রাপ্তি স্বীকার পত্র নামে একটি ডকুমেন্টস দিবে যেখানে আপনার নাম আবেদন ফরম নাম্বার ইত্যাদি উল্লেখ থাকবে। এখন এই প্রাপ্তি স্বীকার পত্র টি সংগ্রহ করুন এবং ভোটার এলাকা পরিবর্তন হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

ভোটার এলাকা পরিবর্তন আবেদন ফরমের সাথে কি কি জমা দিতে হয়

ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম জমা দেওয়ার সময় কিছু গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টস জামা দিতে। নিচে সেই সকল ডকুমেন্টসের তালিকা দেওয়া হলো,

* আপনার বর্তমান জাতীয় পরিচয়পত্র কপি
* ভোটার স্থানান্তর প্রত্যয়ন পত্র
* ইউটিলিটি বিল কপি
* TAX পরিশোধ রশিদ
* এলাকার বাসিন্দা প্রমানের ক্ষেত্রে নাগরিকত্ব সনদপত্র

এই সমস্ত ডকুমেন্টস গুলো ভোটার এলাকা পরিবর্তন ফরম ১৩ পূরণ করে জমা দেওয়ার সময় আবেদন পত্রের সাথে জমা দিতে হয়।

ভোটার স্থানান্তর প্রত্যয়ন পত্র

ভোটার স্থানান্তর প্রত্যয়ন পত্র মূলত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান / পৌরসভার মেয়র / সিটি করর্পোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক দেওয়া হয়ে থাকে। ভোটার স্থানান্তর প্রত্যয়ন পত্রে আবেদনেকারী বর্তমানে কোন জায়গার ভোটার এবং সে কোন জায়গায় ভোটার হিসেবে পরিবর্তন করতে চাই ও তার ভোটার আইডি নম্বর সহ উল্লেখ থাকবে। সেই প্রত্যয়ন পত্রটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান / পৌরসভার মেয়র / সিটি করর্পোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক প্রতি স্বাক্ষরিত হইতে হবে।

ভোটার স্থানান্তরের প্রত্যয়ন পত্রের নমুনা

অনেকই জানেন না কিভাবে ভোটার স্থানান্তরের প্রত্যয়ন পত্র বানাতে হয়। তাই অনেকেই ভোটার স্থানান্তরের প্রত্যয়ন পত্রের নমুনা অনলাইনে খুজে থাকেন। তাদের সুবিধার জন্য আজকে ভোটার স্থানান্তরের প্রত্যয়ন পত্রের নমুনার ছবি নিচে দেওয়া হলো। এখান থেকে দেখে দেখে সহজেই আপনি ভোটার স্থানান্তরের প্রত্যয়ন পত্র বানাতে পারবেন।

ভোটার স্থানান্তরের প্রত্যয়ন পত্রের নমুনা
ভোটার স্থানান্তরের প্রত্যয়ন পত্রের নমুনা

ভোটার এলাকা পরিবর্তন করতে কতদিন সময় লাগে

ভোটার এলাকা পরিবর্তন করতে ১০ দিন থেকে ১ মাস পর্যন্ত সময় লেগে থাকে। ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার সময় মূলত নির্ভর করে নির্বাচন কমিশন অফিসের উপর। কারণ তারা যত তাড়াতাড়ি ভোটার এলাকা পরিবর্তন আবেদন যাচাই বাছাই করে সার্ভারে এন্ট্রি দিবে ততই তাড়াতাড়ি ভোটার এলাকা পরিবর্তন হয়ে যাবে। তবে সবকিছু বিবেচনা করে বলা যায় ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার জন্য ১ মাসের অধিক সময় লাগে না।

অনলাইনে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার নিয়ম

অনলাইনে এখনো পর্যন্ত ভোটার এলাকা পরিবর্তন করা যায় না। ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার একমাত্র উপায় হলো অফলাইনে উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে আবেদন করার মাধ্যমে। অফলাইনে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার জন্য ভোটার স্থানান্তর ফরম পাওয়া যায়। এই ফরম ব্যবহার করে আবেদন করা যায়।

তাই বলা যায় অনলাইনে ভোটার এলাকা পরিবর্তন করার কোন সুযোগ নেই।

ভোটার আইডি কার্ড ট্রান্সফার চেক

ভোটার আইডি কার্ড ট্রান্সফার চেক কেবল ভোটার আইডি কার্ড ট্রান্সফার সম্পন্ন হয়ে গেলে অনলাইনের মাধ্যমে চেক করা যায়। তবে ভোটার আইডি কার্ড ট্রান্সফার সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন থেকে আপনাকে তিনটি এসএমএস দিবে। নির্বাচন কমিশনের নাম্বার ১০৫ থেকে প্রথম এসএমএসে আপনাকে এনআইডি ভেরিফিকেশন কোড প্রদান করবে। দ্বিতীয় এসএমএসে আপনার ভোটার স্থানান্তর আবেদন টি গৃহীত হয়েছে বলে জানাবে। সর্বশেষ এসএমএসে আপনাকে আপনার ভোটার স্থানান্তর আবেদন গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানাবে।

ইসি থেকে তিন নাম্বার এসএমএস পাওয়ার পর আপনি এনআইডি পোর্টাল থেকে আপনার স্থানান্তরিত ভোটার আইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করে নিন। ভোটার স্থানান্তর হয়ে গেলে আপনাকে নতুন করে কোন স্মার্ট কার্ড দেওয়া হবে না।

ভোটার এরিয়া কি

আপনি যে এলাকায় জাতীয় বা স্থানীয় নির্বাচনে ভোট প্রদান করেন সেই এলাকা কে ভোটার এরিয়া বলা হয়। অর্থাৎ, আপনি যেই এলাকার ভোটার সেই এলাকা হলো আপনার ভোটার এরিয়া।

 

Sarker Tahsin

Hello friends, my name is Imon Miah, I am the Writer and Founder of this blog Infolinebd and share all the information related to Blogging, SEO, Internet, Sports news, Review, Make Money Online, News and Technology through this website. Know for infolinebd about

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page