স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অনলাইনে আবেদন করার নিয়ম

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অনলাইনে আবেদন করার নিয়ম

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অনলাইনে আবেদন করার নিয়ম
স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অনলাইনে আবেদন করার নিয়ম

পশ্চিমবঙ্গ সরকার রাজ্যের সকল মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্য নিয়ে ২০১৬ সালে দুয়ারে স্বাস্থ্য সেবার আওতায় স্বাস্থ্য সাথী কার্ড প্রবর্তন করে। গরিব মানুষ থেকে শুরু করে সমাজের উচ্চবিত্ত সকল মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতে এই কার্ড গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের মাধ্যমে স্বাস্থ্য বীমা চালু করে যার ফলে পশ্চিমবঙ্গ বাসী চিকিৎসা সংক্রান্ত অনেক সুবিধা পাচ্চে। আগে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের আবেদন সিস্টেম ছিল অফলাইনে। অফলাইনে তখন স্বাস্থ্য সাথী কার্ড করতে বিরাম্বনায় পড়তে হতো কিন্তু বর্তমানে অনলাইনের মাধ্যমে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের আবেদন করা যায়। নিচে কিভাবে অনলাইনে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের আবেদন করবেন সেই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড কি

স্বাস্থ্য সাথী বীমা যে কার্ডের মাধ্যমে পাওয়া যায় সেই কার্ডকে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড বলে। স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের আওতায় পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড প্রবর্তন করে। মূলত স্বাস্থ্য সাথী হলো একটি বিমা যার মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গ সরকার প্রত্যেক স্বাস্থ্য সাথী কার্ড হোল্ডারদের ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত স্বাস্থ্য বীমা দিয়ে থাকে। স্বাস্থ্য সাথী বিমা পতে হলে করতে হবে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড কারা পাবে

পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড কারা পাবে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত বলে দিয়েছে। সেই সকল ব্যাক্তি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড পাবেন যারা নিচের শর্তের আওতায় পড়বে,

*আবেদন কারীকে অব্যশই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে।

* পরিবারের মাহিলা প্রধানকে দেওয়া হবে কার্ড।

* আর কোন স্বাস্থ্য বীমা থাকলে চলবে আবেদন করা যাবে না।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের সুবিধা কি

স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের নানাবিধ সুবিধা রয়েছে। নিম্নে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের সুবিধা আলোচনা করা হলো,

See also  রকেট একাউন্ট চেক করার কোড

* প্রতি বছর ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত চিকিৎসা সেবা পাবে প্রত্যেক পরিবার যার খরচ বহন করবে রাজ্য সরকার।

* স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের মেয়াদ ১ বছর হলেও প্রতি বছর নবায়ন করা যায়।

* হাসপাতালে ভর্তি থাকা সময়ে সকল পরীক্ষা নিরিক্ষা ও ঔষধ বিনামূল্যে দেওয়া হবে।

* স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের সেবা পাওয়া যাবে জেলার নথিভুক্ত সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে।

* পরিবারের সকল সদস্য এবং তাদের উপর নির্ভরশীল শিশুরা এই পরিসেবার আওতায় আসবে।

* স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকলে হাসপাতাল থেকে বাড়ি আসার সময় গাড়িভাড়া হিসেবে সরকারি হাসপাতাল থেকে ৫০০ এবং বেসরকারি হাসপাতাল থেকে ২০০ টাকা পাওয়া যাবে।

* হাসপাতালের ব্যায়ের খরচ সরাসরি বীমা কর্তৃপক্ষ দেবে পূর্বের ব্যয়ের হার অনুযায়ী।

এই সকল সুবিধা সমূহ স্বাস্থ্য সাথী কার্ড হোল্ডার পেয়ে থাকবেন।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড করতে কি কি লাগবে

স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের আবেদন করতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ডকুমেন্টস লাগে যা সকল আবেদনকারীদের প্রয়োজন পরে,

* আধার কার্ড কপি।
* ঠিকানা প্রমানের কপি।
* পরিচয় প্রমানের কপি।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অনলাইনে আবেদন করার নিয়ম

বর্তামনে অনলাইনের মাধ্যমে সহজেই স্বাস্থ্য সাথী ওয়েবসাইটে সাহায্যে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের আবেদন কারা যায়। স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের আবেদনের জন্য,

* প্রথমে আপনাকে স্বাস্থ্য সাথী ওয়েব পোর্টালে ডুকতে হবে।

* তারপর Apply online Tab থেকে Apply for স্বাস্থ্য সাথী কার্ড সিলেক্ট করতে হবে।

* এখন আপনার সমানে নতুন একটি ইন্টারফেস ওপেন হবে এই পর্যায়ে আপনাকে আপনার মোবাইল নাম্বারটি দিয়ে ওটিপি নিতে হবে। ওটিপি নেওয়ার জন্য get otp option a ক্লিক করতে হবে।

* তারপর মোবাইলে আসা ওটিপি টি ইনপুট দিয়ে সাবমিটে ক্লিক করতে হবে।

* এখন আপনার সামনে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের একটি ফরম ওপেন হয়ে যাবে। এখন আপনার কাজ হলো এই ফরমটি সর্তকতার সাথে পূরণ করা। এখন শুরুতে আপনার জেলা সিলেক্ট, ব্লাক, কেটাগরি ভিলেইজ, পঞ্চায়েত, রেসেডিয়ানসিয়াল এড্রেস এগুলো পূরণ করুন।

See also  প্রতিবন্ধী ভাতা পাওয়ার নিয়ম

* তারপর আপনার ব্যাক্তিগত তথ্য যেমন আবেদনকারীর নাম, আবেদনকারীর স্বামীর নাম এবং পরিবারের বাকি সদস্যদের নাম (ছেলে মেয়ে উভয়ে) তথ্য পূরণ করুন।

* এবার আবেদনকারীর লিঙ্গ, তার বয়স ও তার আধার কার্ড নাম্বার, তার খাদ্য সাথী নাম্বার, পেশা, মোবাইল নাম্বার সাবমিট দিন একিভাবে পরিবারের সকল সদস্যদের তথ্য সাবমিট দিন। সর্বোচ্চ ৫ জনের তথ্য আপনি সাবমিট দিতে পারবেন এবং সকলের সাথে আবেদনকারীর কি সম্পর্ক তা লিখতে হবে।

* সফলভাবে আবেদন ফরম পূরণ করার পর এবার সাবমিটে ক্লিক করুন।

* এখন আপনার সামনে আবেদন ফরমের উপর একটি রেজিষ্ট্রেশন নাম্বার চলে আসবে ঐ নাম্বারটি নিজের কাছে সংগ্রহ করে রাখুন।

ব্যাস এখন আপনার আবেদন সম্পন্ন হয়ে গেল। ৪-৫ দিনের মধ্যে আপনাকে মোবাইলে এসএমএস অথবা ফোন কলের মাধ্যমে ডাকা হবে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের ছবি তুলা ও অনান্য কাজের জন্য।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড চেক করতে কি কি লাগে

অনলাইনে swasthya sathi কার্ড চেক খুব সহজেই করা যায়। অনলাইনে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড চেক করার ফলে এই কার্ডের সর্বশেষ অবস্থা ঘরে বসেই দেখা যায়। অনলাইনে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড চেক করার জন্য যা যা লাগবে,

* URN Number
* Aadhaar Card Number
* Online Registration Number
* District Name

এই সমস্ত ডকুমেন্টস লাগবে অনলাইনে swasthya sathi Card Check করার জন্য।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড চেক করার নিয়ম

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অনলাইনের মাধ্যমে চেক করা যায়। মানে আপনার স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের বর্তমান অবস্থা কি পর্যায়ে আছে তা চেক করা যাবে। স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অনলাইনে চেক করার জন্য আপনাকে,

* প্রথমে স্বাস্থ্য সাথী ওয়েবসাইটে ডুকতে হবে। তারপর Apply online থেকে Check your online application status for swasthya sathi অপশনে ক্লিক করতে হবে।

* Check your online application status for swasthya sathi অপশনে ক্লিক করার পর আপনার সামনে নতুন একটি ইন্টারফেস ওপেন হয়ে যাবে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড চেক করার জন্য।

* তারপর স্বাস্থ্য সাথী কার্ড চেক করার জন্য প্রথমে আপনার ডিস্ট্রিক সিলেক্ট করে নিন।

* তারপর আপনার অনলাইন রেজিষ্ট্রেশন নাম্বার / আধার কার্ড নাম্বার / URN নাম্বার ইনপুট দিন।

* এখন সাবমিটে ক্লিক করুন তাহলেই আপনার স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের বর্তমান অবস্থা কি তা দেখতে পাবেন।

এই নিয়ম অনুসরণ করে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড চেক করা যায়।

 

Sarker Tahsin

Hello friends, my name is Imon Miah, I am the Writer and Founder of this blog Infolinebd and share all the information related to Blogging, SEO, Internet, Sports news, Review, Make Money Online, News and Technology through this website. Know for infolinebd about

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page